Trending Bangla Blogs

ভাইরাস জ্বর ভালো হওয়ার ঘরোয়া সমাধান

19

আজকের এই আর্টিকেলে আলোচনা করা হবে ভাইরাস জ্বর ভালো হওয়ার ঘরোয়া সমাধান নিয়ে। সবাই মনোযোগ দিয়ে পড়ুন আর শেয়ার করে দিন বন্ধুদের মাঝে।

ঋতু পরিবর্তন হচ্ছে। এই সময়ে বাতাসে ভাইরাস ভেসে বেড়ায়। প্রায় প্রতি ঘরেই জ্বর-জারি লেগে আছে। এই থেকে রক্ষা পেতে কিছু ঘরোয়া উপাদান রয়েছে, যা খেলে সর্দি-জ্বর ভালো হবে।

চিকিৎসকরা যা বলছেন, ভাইরাস জ্বরের অন্যতম লক্ষণ হলো গলা ব্যথা, কাশি, গলার স্বর বসে যাওয়া, সর্দি ও শরীরে ব্যথা। মাঝে মাঝে আবার এ জ্বরের কারণে ডায়রিয়া, বমিও হতে পারে। সাবধানে থাকুন।

এই জ্বর থেকে রক্ষা পাওয়ার কিছু ঘরোয়া সমাধান রয়েছে এবং এর কোনো পার্শ্ব প্রতিক্রিয়াও নেই।

ধনে পাতা
প্রচুর ভিটামিন সমৃদ্ধ ধনে পাতা মানবদেহের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে সহায়তা করে। ভাইরাসজনিত সংক্রমণ প্রতিরোধে হার্ব হিসেবে ধনিয়া ব্যবহার করা যায়। এছাড়া ধনে পাতা দিয়ে চা বানিয়ে বা পানিতে ধনে পাতা মিশিয়ে খেলেও উপকার পাওয়া সম্ভব।

তুলসি পাতা
ভাইরাসজনিত জ্বরের চিকিৎসায় তুলসি পাতার ব্যবহার খুবই ফলপ্রসূ। এর জন্য পরিষ্কার পানিতে তুলসি পাতা ও আধা চা চামচ লবঙ্গের গুঁড়া মেশাতে হবে। কিছুক্ষণ জ্বাল দিয়ে পানি শুকিয়ে কমে গিয়ে অর্ধেক হলে তা খেতে হবে।

ভাতের মাড়
ভাইরাস সংক্রমণের ঘরোয়া অনেক বড় একটি ওষুধ এটা। এটা মূত্রবর্ধক ও রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে সক্ষম। তাই জ্বর হলে ভাতের মাড় খেলে উপকার পাওয়া সম্ভব।

আদা ও মধু
আদায় শক্তিশালী কিছু উপাদান রয়েছে, যা ভাইরাস জ্বরের লক্ষণ থেকে তাৎক্ষণিক মুক্তি দিতে সক্ষম। জ্বর মোকাবেলায় শুকনা আদার সঙ্গে মধু মিশিয়ে খাওয়ার পরামর্শ দেওয়া হয় এবং সম্ভব হলে নিয়মিত এই  আদা ও মধু খাবেন।

মেথি পানি
জ্বর প্রতিরোধে মেথি ভেজানো পানি পানও অনেক উপকারী। এজন্য আধা কাপ পানিতে এক টেবিল চামচ পরিমাণ মেথি সারারাত ভিজিয়ে রাখতে হবে। সকালে ঘুম থেকে উঠে পানি ভালোভাবে ছেঁকে নিয়ে খেতে হবে।

আর্টিকেল টি পড়ে ভালো লাগলে শেয়ার করে দিন অন্য বন্ধুদের সাথে।

Comments are closed.