Trending Bangla Blogs

যুক্তরাষ্ট্রের সাথে বড় ধরণের অস্ত্র চুক্তি করল তাইওইয়ান

21

অস্ত্র চুক্তি করল তাইওইয়ান  যা চিন কে চমকে দিয়েছে । সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্রের কাছ থেকে এফ-১৬ যুদ্ধবিমান কেনার জন্য ছয় হাজার ২০০ কোটি ডলারের বিরাট এক অস্ত্র চুক্তি সম্পাদন করেছে তাইওয়ান। এটিই  হচ্ছে তাইপে ও ওয়াশিংটনের মধ্যে এখন পর্যন্ত সবচেয়ে বড় অস্ত্র চুক্তি। এ চুক্তির কারণে তাইওয়ান ও যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে চীনের উত্তেজনা বেড়ে যাবে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। 

নতুন এই অস্ত্র চুক্তির মাধ্যমে তাইওয়ানের কাছে ৯০টি এফ-১৬ যুদ্ধবিমান বিক্রি করবে যুক্তরাষ্ট্র। আগামী ১০ বছর ধরে তাইওয়ান এসব বিমান হাতে পাবে বলে জানা যায়। শুক্রবার তাইপের সঙ্গে বিশাল এই চুক্তির ঘোষণা দিয়েছে ওয়াশিংটন থেকে। তাইওয়ানকে যেসব বিমান দেওয়া হবে তা হবে এফ-১৬ প্রযুক্তির সর্বাধুনিক নতুন ভার্সন। 

চীন ইতোমধ্যে যুক্তরাষ্ট্রকে হুঁশিয়ার করে জানিয়েছে যে, তাইপেকে এফ-১৬ সরবরাহ করলে এর পরিণতি ভোগ করতে হবে ওয়াশিংটনকেই। তাইওয়ানকে ৬৬টি এফ-১৬ সরবরাহ করার ইঙ্গিত আগের বছরই দিয়েছিল যুক্তরাষ্ট্র। অস্ত্র চুক্তি করল তাইওইয়ান বেইজিং সে সময় তাইওয়ানের সঙ্গে অস্ত্র চুক্তি করা থেকে বিরত থাকার কথা জানায় যুক্তরাষ্ট্রকে। 

১৯৯২ সালে তাইওইয়ানের কাছে প্রথম যুদ্ধবিমান বিক্রয় করে ওয়াশিংটন। তবে চীন সবসময় বলে আসছে তাওয়ান তার নিজের ভূখণ্ড এবং তাইপেকে আলাদা করে অস্ত্র সরবরাহ করা এক চীন নীতির লঙ্ঘন। তাইওয়ানের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের অস্ত্র চুক্তিকে চীনের মধ্যকার বিষয়ে হস্তক্ষেপ বলে মনে করে।

তাইওয়ান নিজেদের স্বাধীন রাষ্ট্র মনে করলেও চীন এখনও তাদের স্বাধীন হিসাবে গ্রহণ করে নি। বরং তাইওয়ানকে তারা তাদের বিচ্ছিন্ন প্রদেশ মনে করে এবং বলপ্রয়োগ করে হলেও একদিন অঞ্চলটির নিয়ন্ত্রণ ফিরে পাবে বলে তারা বিশ্বাস করে।  

বেইজিং তাই সব সময় যুক্তরাষ্ট্রকে তাইওয়ানের বিষয়ে তাদের এক চীন নীতি’র প্রতি শ্রদ্ধা রাখার আহ্বান জানিয়ে আসছে। এজন্যে যুক্তরাষ্ট্র-তাইওয়ান এর এই ঘনিষ্ঠতা একদমই পছন্দ নয় চীনের।

Comments are closed.